Logo

বঙ্গবন্ধুর নামে শরিয়তপুর সরকারি কলেজের নতুন নামকরণ

হাসান সিকদার । স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশিত: বুধবার, ৯ জুন, ২০২১
বঙ্গবন্ধুর নামে শরিয়তপুর সরকারি কলেজের নতুন নামকরণ

সরকারি কলেজের নাম পরিবর্তন করে ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি কলেজ’ নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্ট।

গতকাল মঙ্গলবার (৮ জুন) শরিয়তপুর সরকারি কলেজের নাম ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি কলেজ’ হিসেবে নামকরণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর নামে কলেজের নতুন নামকরণের সত্যতা নিশ্চিত করে কলেজটির অধ্যক্ষ অধ্যপক মো. হারুন অর রশীদ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট এর পক্ষ থেকে শরিয়তপুর সরকারি কলেজ এর নাম জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি কলেজ হিসেবে অনুমোদন পেয়েছে।

এজন্য আমি বর্তমান সরকার প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই। বিশেষ কৃতজ্ঞতা শরীয়তপুর-১ আসনের সাংসদ ইকবাল হোসেন অপুর প্রতি।’ এদিকে শরিয়তপুর সদরে এই প্রথম জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নামে কোনো প্রতিষ্ঠানের নামকরণ করায় শরিয়তপুর সদরবাসীর মধ্যে আনন্দ উদযাপনের খবর পাওয়া গেছে। জেলা শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি জনাব আব্দুর রব মুন্সীর ছেলে মাহমুদুল হাসান পাভেল ফেসবুকে লিখেন, ‘শরিয়তপুর সরকারি কলেজ এর নাম জাতির পিতার নামে নামকরণ করা হয়েছে।

শরিয়তপুর সদরে এই প্রথম জাতির পিতার নামে কোনো প্রতিষ্ঠানের নামকরণ করায় আমরা শরিয়তপুর সদরবাসী ধন্য, আমরা গর্বিত।’ তবে, অনেকে মনে করছেনএ ঐতিহ্যবাহী শরীয়তপুর সরকারি কলেজ জেলা শহরের নামে একমাত্র কলেজ। শরীয়তপুরে জেলা শহরের নামে এই ঐতিহ্যবাহী কলেজের নাম জেলা শহরের নামেই সুন্দর। এর পরিবর্তে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি মেডিকেল কলেজ অথবা বিশ্ববিদ্যালয় হলে আরও সুন্দর হত। বিষয়টি নিয়ে শরীয়তপুর জেলা ভিত্তিক বিভিন্ন গ্রুপে অনেকেই নিজের ব্যক্তিগত মতামত জানাচ্ছেন। শান্ত মাঝি নামের একজন মন্তব্য করেন, ‘ভাই, এই কলেজটা রেখে নতুন করে কলেজ বা যেকোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যেমন- আমাদের এখানে বিশ্ববিদ্যালয় এর খুব অভাব। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নামে নামকরণ করে যদি একটা বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হয়, তাহলে কি বেশি ভালো হতো না?’

ইমরান আল নাজির নামের আরও একজন মন্তব্য লিখেন, ‘নেতিবাচক, আচ্ছা ভাই নামকরণ করে লাভ-ক্ষতি কি হল? নতুনভাবে একটা বিশ্ববিদ্যালয় করলে অত্যন্ত প্রশংসনীয় হত।’ প্রসঙ্গত, শরীয়তপুর জেলার পুরোনো ও ঐতিহ্যবাহী এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জেলা শহরের ধানুকা বাজারের পার্শ্বে অবস্থিত। কলেজটি শরীয়তপুর মহাবিদ্যালয় নামে ১৯৭৮ সালের ৯ জুন প্রতিষ্ঠিত হয়। কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন তৎকালীন মহাকুমা প্রশাসক মো. আমিনুর রহমান। ১৯৮০ সালের ১ মার্চ এই প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ হয়।

১৯৯৮-১৯৯৯ শিক্ষাবর্ষে শরীয়তপুর সরকারি কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে অনার্স কোর্স প্রবর্তনের মধ্য দিয়ে শরীয়তপুর জেলার উচ্চশিক্ষার দ্বার উন্মোচিত হয়। বর্তমানে এই কলেজে দুইটি আবাসিক হোস্টেলসহ ১১ টি বিষয়ে অনার্স কোর্স ও চার বিষয়ে মাস্টার্স কোর্স চালু রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন।

Theme Created By Tarunkantho.Com